জেনে নিন- সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন সম্পর্কে জানতে ইচ্ছুক পাঠক বন্ধুদের জানাই আমাদের আজকের আলোচনা পর্বে স্বাগতম। কেননা আজ আমরা- সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন সম্পর্কে এ টু জেড আলোচনা করব। 

কারণ সাধারণত অনেকেই ক্যারিয়ার পরিকল্পনার ক্ষেত্রে স্যালারির কথা চিন্তা করে প্রশ্ন করে থাকেন– বাংলাদেশে একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর সর্বোচ্চ বেতন কত? একজন নতুন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার বাংলাদেশে কত টাকা আয় করতে পারেন, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন কত এবং তাদের চাহিদা কেমন!

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন

তাই আজ আমরা– বাংলাদেশে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন এবং বিশ্বের বাঘা বাঘা টেক কোম্পানির সফটওয়্যার সমূহের নাম, পাশাপাশি বিশ্বের সর্বোচ্চ বেতন প্রাপ্ত সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার কারা এবং তাদের বেতন কত সে বিষয়গুলো ধারাবাহিকভাবে তুলে ধরব। তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক– সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর ভবিষ্যৎ এবং সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন কত কি সে সম্পর্কে। 

আরও পড়ুনঃ কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বেতন.

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন কত?

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন মূলত দেশ ভিত্তিকভাবে ভিন্ন হয়ে থাকে। যেমন ধরুন আমাদের বাংলাদেশের যদি একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন ৪০ হাজার হয়, তাহলে আমেরিকা, রাশিয়া, ইউরোপ সহ অন্যান্য দেশে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন বা মাসিক স্যালারি এর থেকে কয়েক গুণ বেশি হবে। 

আমরা মূলত এ পর্যায়ে আপনাদেরকে বাংলাদেশে একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর সর্বোচ্চ বেতন কত সেটা জানাবো। পরবর্তীতে বিভিন্ন দেশে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর কদর এবং তাদের মাসিক বা বার্ষিক পারিশ্রমিক কত সেটা চার্ট আকারে প্রকাশ করব। তাই নিচের দুইটি পয়েন্ট অবশ্যই মনোযোগ সহকারে পড়ুন। 

বাংলাদেশে একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন কত?

দেখুন ইতিমধ্যে আমরা বলেছি– সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন দেশভিত্তিকভাবে পরিবর্তন হতে পারে। কেননা এই বেতন মূলত কর্মস্থলের অবস্থান, পদবী, কোম্পানির ধরন, কর্মরত ব্যক্তির যোগ্যতা ও দক্ষতার উপর ভিত্তি করে কিছুটা কম অথবা বেশি হয়ে থাকে। তবে সাধারণত বাংলাদেশের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়াররা যে বেতন ইতিমধ্যে পাচ্ছেন সেটাই আমরা আপনাদেরকে জানাবো। 

কারণ আমাদের মাঝে বেশিরভাগ মানুষের ধারণা– সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার মানেই হচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা সেলারি পাওয়া। কিন্তু আসলেই কি তাই! তাই এ ব্যাপারে এনালাইসিস করার পর আমরা যদি বাংলাদেশের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন সম্পর্কে বলি তাহলে বলা যাবে একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার মূলত ১০,০০০ থেকে শুরু করে ৫ লক্ষ টাকা বা তার থেকে বেশি বেতন পেয়ে থাকে। 

কেননা ইতোমধ্যে এ ব্যাপারে আমরা জেনেছি- সাধারণত নতুন এন্ট্রি-লেভেল সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন আমাদের দেশে ২০,০০০ টাকা থেকে ৪০,০০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে। অন্য দিকে, মধ্যম স্তরের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন সাধারণত ৪০,০০০ টাকা থেকে ৮০,০০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে এবং উচ্চতর সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন ৮০,০০০ টাকা এবং এর উপরে হলেও হতে পারে। 

আর বেতন বিবেচনা করতে অন্যান্য উপায়গুলি হিসেবে আর যে যে বিষয় থাকতে পারে সেগুলো হলো:- অতিরিক্ত বেনিফিট ও সুবিধাগুলি। যেমন:-

  • বীমা, 
  • ভাতা, 
  • পেনশন, 
  • গ্রেড বৃদ্ধি, 
  • পার্কিং সুবিধা ইত্যাদি

এছাড়াও বেতনের পরিমাণের পাশাপাশি অভিজ্ঞতা, কার্যস্থলের ধরণ, ব্যাংক প্রতিষ্ঠানের ধরণ, শিক্ষাগত যোগ্যতা ইত্যাদিরও বিবেচনা করা হয়ে থাকে যা ইতোমধ্যে আমরা উল্লেখ করেছি। 

আর হ্যাঁ মনে রাখবেন, আমাদের উল্লেখিত এই তথ্যগুলি সম্পূর্ণভাবে আলোচ্য এবং স্থানীয় শর্তাদি উপর ভিত্তি করে তুলে ধরা হয়েছে। আর তাই বিভিন্ন দেশে বেতনের সাধারণ পরিমাণে অবশ্যই ভিন্নতা আসবে অর্থাৎ আপনি বাইরের দেশে যদি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত হতে পারেন তাহলে বেতন হিসেবে আপনি ভিন্ন এমাউন্টের সেলারি পেয়ে থাকবেন। 

আরও পড়ুনঃ পোল্যান্ড কাজের বেতন কত?

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন কোন দেশে কত টাকা?

এ পর্যায়ে আমরা হাতেগোনা দশটি দেশে মূলত সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের বার্ষিক বেতন হিসেবে কত টাকা স্যালারি প্রদান করা হয় সেটা সাজেস্ট করব। তাই সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন সম্পর্কে ধারণা রাখতে চাইলে নিচের টেবিলটি মনোযোগ সহকারে পড়তে পারেন। যথা:

দেশ এর নামসফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন (বার্ষিক হিসেবে)
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (USA)গড় বেতন – $110,000 – $140,000 প্রতি বছর।
কানাডাগড় বেতন – CAD 70,000 – CAD 100,000 প্রতি বছর।
জাপানগড় বেতন – JPY 6,000,000 – JPY 8,000,000 প্রতি বছর।
যুক্তরাজ্য (UK)গড় বেতন – £40,000 – £60,000 প্রতি বছর।
সুইডেনগড় বেতন – SEK 500,000 – SEK 700,000 প্রতি বছর।
সিঙ্গাপুরগড় বেতন – SGD 60,000 – SGD 100,000 প্রতি বছর।
নেদারল্যান্ডসগড় বেতন – €40,000 – €60,000 প্রতি বছর।
আস্ট্রেলিয়াগড় বেতন – AUD 70,000 – AUD 100,000 প্রতি বছর।
জার্মানিগড় বেতন – €50,000 – €70,000 প্রতি বছর।
ভারতগড় বেতন – INR 800,000 – INR 1,500,000 প্রতি বছর।

সর্বোচ্চ বেতনপ্রাপ্ত সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার কে?

আলোচনার এ পর্যায়ে আমরা কোন ধরনের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়াররা সবচেয়ে বেশি বেতন পেয়ে থাকেন তা উল্লেখ করব। পাশাপাশি বিশ্বের সর্বোচ্চ বেতন প্রাপ্ত সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার কে তার নাম সাজেস্ট করব। কেননা যে বা যারা সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা করতে ইচ্ছুক তাদের মনে হওয়ার হামেশাই এই প্রশ্নগুলো এসেই থাকে। 

আপনি যদি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার বিষয়টি নিয়ে রিসার্চ করেন তাহলে এটা খুব সহজেই উপলব্ধি করতে পারবেন, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়াররা সাধারণত বেতনের ওপর নির্ভর করে না। তারা বিভিন্ন কোম্পানির জন্য কাজ করে এবং প্রতিটি প্রকল্পের পরে বিপুল পরিমাণ অর্থ উপার্জন করে থাকে।

আর তাই সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং হিসেবে নিজের যদি একটা দারুন পোর্টফোলিও তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে ভালো কোম্পানির সাথে কাজ করার যোগ্যতা ও দক্ষতা অর্জন করতে হবে। এ পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে বিখ্যাত ও নামিদামি এবং সর্বোচ্চ বেতন প্রাপ্ত সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হলেন:-Sergey Aleynikov. যিনি প্রতিটি প্রকল্পের জন্য বেতন হিসেবে পারিশ্রমিক $১.২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। 

এবার আসুন কোন ধরনের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়াররা সবচেয়ে বেশি বেতন পান সেই নামগুলো জেনে নেওয়া যাক:-

  • মেশিন লার্নিং ইঞ্জিনিয়ারঃ একটি সমীবিশ্বের ক্ষায় দেখা গিয়েছে এই ধরনের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়াররা বার্ষিক $১৩৮.০০০-$২৫০,০০০ উপার্জন করে থাকে। 
  • সাইবার সিকিউরিটি ইঞ্জিনিয়ারঃ এই সকল ইঞ্জিনিয়ারদের এক সমীক্ষা থেকে জানা গিয়েছে– তারা বার্ষিক আয় করে থাকে $১৬০,০০০ ডলার। 
  • ভার্চুয়াল রিয়েলিটি ইঞ্জিনিয়ারঃ এই ধরনের ইঞ্জিনিয়াররা মোটামুটি $১২০,০০০-$২০০,০০০ ডলার উপার্জন করতে সক্ষম হয়।
  • বড় ডেটা ইঞ্জিনিয়ারঃ এই ধরনের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়াররা আয় করতে পারে মোটামুটি $১৬০,০০০ ডলার।
  • গেমিং ইঞ্জিনিয়ারঃ উপার্জনের পরিসীমা বার্ষিক গড় হিসেবে এই ধরনের ইঞ্জিনিয়ারদের ক্ষেত্রে $১৫৫.০০০ ডলার।
  • মোবাইল ইঞ্জিনিয়ারঃ মোবাইল ইঞ্জিনিয়াররা প্রায় ইনকাম করে থাকে $১৫০.০০০ ডলার এর অধিক অর্থ। 
  • ব্যাক এন্ড ইঞ্জিনিয়ারঃ এ ধরনের ইঞ্জিনিয়াররা বার্ষিক ইনকাম করতে পারে মোটামুটি $১০৮.০০০ ডলার 
  • সাইট নির্ভরযোগ্যতা প্রকৌশলীঃ এই ধরনের ইঞ্জিনিয়াররা বার্ষিক ইনকাম করতে পারে $১৪০.০০০ ডলার এবং 
  • ফ্রন্ট এন্ড ইঞ্জিনিয়াররা বার্ষিক ইনকাম করে মোটামুটি $১১০.০০০ ডলার। 

তবে হ্যাঁ, কোম্পানির ধরন এবং যোগ্যতা ও দক্ষতার উপর ভিত্তি করে উল্লেখিত অর্থের থেকে আরও অধিক বেশি অর্ধ উপার্জন করতে সক্ষম হয় এই ধরনের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং সেক্টরের মানুষগুলো।

তাই আপনি চাইলে সুন্দর ক্যারিয়ার পরিকল্পনায় ক্যারিয়ার হিসেবে বাছাই করতে পারেন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং পেশাকে। 

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পর্কিত প্রশ্ন ও তার সমাধান

১. সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার এর কাজ কি?

উত্তর: 

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হলে একজন পেশাদার ব্যক্তি, যিনি কম্পিউটার সফটওয়্যার উপর কাজ করে থাকেন। তারা সফটওয়্যার বিকাশ প্রক্রিয়ার সমস্ত পদক্ষেপ নেয়, যার মধ্যে সফটওয়্যার ডিজাইন, পরিবর্তন, বর্ধিত করা ও সফটওয়্যার টেস্ট সম্পর্কিত কাজগুলি অন্তর্ভুক্ত।

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের কাজের মধ্যে থাকতে পারে সফটওয়্যার ডিজাইন করা, যেটি সফটওয়্যার বিকাশের মূল আদান-প্রদানের বিভিন্ন নীতি, প্রক্রিয়া ও প্রযুক্তির উপর ভিত্তি করে হয়। তারা প্রধানত প্রযুক্তিগত সমস্যা সমাধান, অভিনব সফটওয়্যার উপাদান তৈরি এবং বিভিন্ন প্রক্রিয়াগুলি পরিবর্তন করার জন্য কম্পিউটার বিজ্ঞান, প্রোগ্রামিং ও অন্যান্য প্রযুক্তির উপর ভিত্তি করে সফটওয়্যার প্রোডাক্ট তৈরি করে।

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের কাজের মধ্যে থাকতে পারে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট প্রক্রিয়া, যেখানে কোড লেখা, টেস্ট করা, ডকুমেন্টেশন তৈরি করা ও অন্যান্য কাজগুলি অন্তর্ভুক্ত হয়। সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের প্রয়োজনীয় প্রোগ্রামিং ভাষা, টুলস এবং ডেভেলপমেন্ট ফ্রেমওয়ার্কগুলির সাথে দক্ষতা থাকতে হয়। তারা অপরিচলিত পদ্ধতিতে কাজ করে এবং প্রকল্পের প্রয়োজনীয়তা ও গুনগতমান মেনে চলে।

সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়াররা আপাতত বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজ করছেন, যেমন ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট, মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট, ডেটাবেস ডেভেলপমেন্ট, কম্পিউটার গ্রাফিক্স, নেটওয়ার্কিং, মেশিন লার্নিং ও এইচআই ডেভেলপমেন্টের মতো ক্ষেত্রে।

২. কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার এর বেতন কত?

উত্তর: এ সম্পর্কিত আর্টিকেল ইতোমধ্যে আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। তাই কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং বেতন জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন।

৩. গুগল সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারের বেতন কত?

উত্তর:- গুগল বিশ্বের সেই প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি, যারা যোগ্য মানুষকে যথাযথ পারিশ্রমিক দিতে কার্পণ্য করে না। গুগলের ইঞ্জিনিয়াররা একানকার তারকা কর্মী। এ প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্নরা ৭০ হাজার থেকে ৮০ হাজার ডলার বেতনে চাকরি শুরু করেন। আর অন্যদিকে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন ১ লাখ ১৮ হাজার ডলার থেকে শুরু হয়।

৪. সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার উপায়

উত্তর: সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার জন্য আপনার কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে। নিম্নলিখিত ধাপগুলির মাধ্যমে আপনি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হতে পারেন:

১. কম্পিউটার বিজ্ঞানে পড়াশোনা: সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার জন্য সঠিক শিক্ষাগত প্রশিক্ষণ অত্যাবশ্যক। কম্পিউটার সায়েন্সের মাস্টার্স বা সমকক্ষ ডিগ্রি অর্জন করা হতে পারে। কম্পিউটার বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়গুলি যেমন ডাটা স্ট্রাকচার, অ্যালগরিদম, কম্পাইলার ডিজাইন, ডাটাবেস সিস্টেম, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি নিয়ে অবশ্যই ধারণা নিতে হবে।

২. প্রোগ্রামিং ভাষা শিখুন: সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার জন্য প্রোগ্রামিং ভাষাগুলি সম্পর্কে ধারণা থাকা প্রয়োজন। জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ভাষাগুলির মধ্যে প্রথমে শুরু করতে পারেন জাভা, সি++, পাইথন, জাভাস্ক্রিপ্ট এমনকি কোনো একটি মডার্ন প্রোগ্রামিং ভাষা যেটি আপনাকে আগ্রহী লাগবে।

৩. প্রক্টিক্যাল প্রশিক্ষণ: বইপাঠের পাশাপাশি কাজের প্রক্টিক্যাল পরিচয়ও অত্যাবশ্যক। বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও অনলাইন সাইট থেকে কাজের প্রক্টিক্যাল পরিচয় অর্জন করতে পারেন। কিছু প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স ও ট্রেনিং প্রোগ্রাম সরবরাহ করে, যা আপনাকে এই ক্ষেত্রে সাথে সাথে প্রশিক্ষণ দেয়।

৪. প্রক্টিক্যাল প্রজেক্ট করুন: আপনার প্রজেক্ট ও সমস্যা সমাধানের ক্ষমতা উন্নত করতে অন্যদের সাথে সহযোগিতা করুন। নিজের জন্য ছোটখাটো প্রজেক্ট বানিয়ে দেখান যা আপনি সমাধান করেছেন এবং নিজেকে নিরূপ করুন যে আপনি প্রকৌশল করতে পারেন।

৫. কোন ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন বেশি?

উত্তর: এ সম্পর্কে জানতে হলে এই আর্টিকেল এর ৪ নম্বর প্যারা টা আবারও পড়ুন।

৬. সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার যোগ্যতা

উত্তর: সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য নিম্নলিখিত যোগ্যতা গুলো দরকার:

>> কম্পিউটার সায়েন্স প্রযুক্তির সুযোগগুলোর সুদৃশ্য থাকা প্রয়োজন। এটি উপযুক্ত হতে পারে প্রোগ্রামিং, ডাটা স্ট্রাকচার, অ্যালগরিদম ডিজাইন, ডিজিটাল লজিক, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক, ডাটাবেস ম্যানেজমেন্ট এবং অন্যান্য সায়েন্টিফিক কম্পিউটিং বিষয়ে।

>> কম্পিউটার প্রোগ্রামিং স্কিলস দক্ষতা আবশ্যক। আপনাকে একটি বা একাধিক প্রোগ্রামিং ভাষা জানা উচিত, যেমন C, C++, Java, Python, JavaScript ইত্যাদি। আপনাকে প্রোগ্রামিং কনসেপ্ট সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে এবং প্রোগ্রামিং ভাষার প্রাকটিস প্রয়োগ করতে পারতে হবে।

>> সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট এর জন্য একটি কম্পিউটার সায়েন্টিস ডিগ্রি প্রায়শই প্রয়োজন। একটি ব্যাচেলর ডিগ্রি অথবা মাস্টার্স ডিগ্রি কম্পিউটার সায়েন্স বা সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থেকে হতে পারে।

>> অস্থিতিশীলতা সাধারণত জরুরি। সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং প্রজেক্টে কাজ করার জন্য আপনার অস্থিতিশীলতা কাজের শেষ পর্যন্ত বজায় রাখতে হবে। প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট, ভার্সন কন্ট্রোল, কোড ডকুমেন্টেশন ইত্যাদি কাজে আপনার অস্থিতিশীলতা প্রদর্শন করা উচিত।

>> ভালো কমিউনিকেশন দক্ষতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং প্রজেক্ট গুলোতে আপনাকে দলের সদস্যরা, ক্লায়েন্টরা, এবং অন্যান্য স্টেকহোল্ডাররা সহযোগিতা করতে হবে। সুযোগ থাকতে পারে একটি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং টিমে অংশগ্রহণ করে যা একটি কমিউনিকেশন-অনুযায়ী কাজ করে।

৭. সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার খরচ

উত্তর: সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার খরচ ভিন্ন ভিন্ন দেশ এবং শিক্ষালয়ের উপর ভিত্তি করে পরিবর্তন করতে পারে। যেমন- একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে সফ্টওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য টিউশন ফি স্নাতক ডিগ্রি প্রোগ্রামের জন্য প্রতি বছর 150,000 টাকা থেকে 300,000 টাকা পর্যন্ত হতে পারে৷ 

৮. সিএসই ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন

উত্তর: বাংলাদেশে সিএসই ইঞ্জিনিয়ারদের বেতন মোটামুটি ৩৫,৫০০-৬৭,০১০ টাকা।

৯. সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য সবচেয়ে ভালো ইউনিভার্সিটি

উত্তর: বাংলাদেশের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের জন্য সেরা বিশ্ববিদ্যালয়

  • BUET,
  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,
  • নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি,
  • ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি,
  • ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ,
  • ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি,
  • আহসানউল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি,
  • সিলেট বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ইত্যাদি।

তো পাঠক বন্ধুরা, আজ এ পর্যন্তই। আপনাদের মধ্যে যে বা যারা প্রফেশনালি সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার কে পেশা হিসেবে বেছে নিতে আগ্রহী তারা এ সম্পর্কে আরো বিষয় জানুন, প্রাথমিক জ্ঞান অর্জন করুন এবং নিজেকে গড়ে তুলুন একজন টপ লেভেলের প্রফেশনাল সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে। সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

All Easy Google News
Setu
Setu

Assalamu Alaikum, I am Setu. An ordinary girl studying in honors. Currently engaged in the world of technology. I am very passionate about blogging and writing. I like to learn and share something new😇

Articles: 132

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *