শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ বিভিন্ন হয়ে থাকে। বিশেষ করে হঠাৎ করে শরীর শুকিয়ে যাওয়াটা টাইপ ওয়ান ডায়াবেটিস এর অন্যতম উপসর্গ। কিন্তু ব্যাপার হচ্ছে– শরীর সাধারণত আর কি কি কারনে শুকিয়ে যায় অর্থাৎ কোন কোন কারণে ওজন দ্রুত কমতে থাকে!

মূলত এই বিষয়গুলো সম্পর্কেই বিস্তারিত আলোচনা করব আজকের এই নিবন্ধনটিতে। তো বন্ধুরা, দিন দিন শরীর শুকিয়ে যাচ্ছে কেন? যদি এই প্রশ্নের উত্তর জানতে চান তাহলে পড়ে ফেলুন আমাদের আজকের এই তথ্যবহুল আর্টিকেল আর জেনে নিন- শরীর শুকিয়ে যাওয়ার বিশেষ কিছু কারণ এবং এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণের উপায় সম্পর্কে খুঁটিনাটি।

শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

আরও পড়ুনঃ শরীর দুর্বল হলে কি কি সমস্যা হয়

Table of Contents

শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

শরীর শুকিয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণগুলো হলো–

  • খাবারে অরুচি
  • দীর্ঘ মেয়াদি সংক্রমণ রোগে আক্রান্ত
  • হরমোন ও বিপাক জনিত সমস্যা
  • অতিরিক্ত মানসিক চাপ
  • বিষণ্ণতা
  • ক্যান্সারে আক্রান্ত
  • অতি সক্রিয় থাইরয়েড
  • কনজেস্টিভ হার্ট ফেইলর
  • পরিপাকতন্ত্রের সমস্যা
  • বংশগত জটিল রোগ
  • গ্যাস্টিকের সমস্যা
  • অতিরিক্ত শারীরিক পরিশ্রম
  • অস্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ
  • অতিরিক্ত প্রেসার এবং মেডিকেশনসহ প্রভৃতি।

তবে হ্যাঁ, আপনি যদি আমাদের উল্লেখিত কারণ গুলো সম্পর্কে জানতে চান তাহলে নিম্নবর্ণিত বিশ্লেষণ গুলো পড়ুন। কেননা বিস্তারিত জানার মাধ্যমে আপনি এই কারণগুলোকে অ্যাভয়েড করার চেষ্টা করবেন এবং শরীর শুকিয়ে যাওয়ার সমস্যাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হবেন।

১. খাবারে অরুচি শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

খাবার খাওয়ার উপর শরীরের ওজন বৃদ্ধি পাওয়া নির্ভর করে। বলা যায়- সুষম খাবার গ্রহণ করলে ওজন ঠিকঠাক থাকে। আর এর বিপরীত হলে অর্থাৎ সুষম খাদ্য গ্রহণ না করলে শরীর শুকিয়ে যায়। একটু লক্ষ্য করলে দেখবেন- এমন অনেকেই আছে যাদের মুখে রুচি নেই বললেই চলে। আর ঐ সকল ব্যক্তিদের একটাই সমস্যা তা হলো খিদে না পাওয়া এবং খাবারের স্বাদ না লাগা। মূলত দীর্ঘদিন যাবত এমনটা হওয়ার কারণে শরীর দিন দিন শুকিয়ে যায় এবং ওজন দ্রুত হারে কমতে থাকে। 

২. দীর্ঘস্থায়ী অসুখে আক্রান্ত থাকা শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

দীর্ঘমেয়াদী কিছু সংক্রমণ রোগ রয়েছে। যেমন– যক্ষা, এইডস, করোনা, কালাজ্বর, লিভার অ্যাপসেস সহ প্রভৃতি। মূলত এই জাতীয় দীর্ঘমেয়াদি কিছু অসুখের কারণে শরীর দ্রুত শুকিয়ে যায়। অতএব বলতে পারেন– হাত পা শুকিয়ে যাওয়ার কারণ, চেহারা শুকিয়ে যাওয়ার কারণ, হঠাৎ শরীর শুকিয়ে যাবার কারণ উল্লেখিত এই জটিল রোগগুলো। 

৩. হরমোন ও বিপাক জনিত সমস্যা শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

চিকিৎসকদের ধারণা মতে– হরমোন জনিত বেশকিছু রোগ শরীরকে ভিতর থেকে দুর্বল করে ফেলে এবং ওজন দ্রুত হারে কমিয়ে আনে বলে জানা গিয়েছে। আর ঐ সকল হরমোন ও বিপাক জনিত সমস্যাগুলো হচ্ছে– হাইপার থাইরয়েডিজম, ডায়াবেটিস, অ্যাডিসনস ডিজিজ,  প্যান হাইপো পিটুইটারিজম, দীর্ঘমেয়াদী ডায়রিয়া বা আমাশয়, অন্ত্রের প্রদাহ, যকৃতের রোগ, রিউমাটয়েড আর্থাইটিস, ফুসফুসের নানাবিদ সমস্যা সহ প্রভৃতি। আর তাই যদি স্বাভাবিকের থেকে ওজন খুব দ্রুত কমে যায় অর্থাৎ শরীর শুকিয়ে যায় তাহলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া জরুরী। কেননা শরীর শুকিয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণগুলোর মধ্যে এটিও একটি। 

৪. অতিরিক্ত মানসিক চাপ শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

যারা মনমরা হয়ে থাকে এবং বিষন্নতায় ভোগে তাদের ওজন দ্রুত কমে এবং শরীর শুকিয়ে যায়। ঠিক এ কারণেই হঠাৎ শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে অতিরিক্ত মানসিক চাপও দায়ী হতে পারে। মূলত আপনার যদি কোন প্রকার জটিল কোন রোগ না থেকে থাকে– তাহলে ধরে নিতে পারেন মানসিক চাপ এবং উদ্বেগের কারণে আপনার দেহের ওজন কমেছে এবং আপনি তুলনামূলক অনেক বেশি চিকন হয়ে গিয়েছেন। সেটা হতে পারে কাজের চাপ অথবা ব্যক্তিগত জীবনের চাপ। 

৫. ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়া শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

ক্যান্সার নামক রোগটি হচ্ছে মরণব্যাধি। আর এই ক্যান্সার শরীরের বিভিন্ন স্থানে হতে পারে। যেমন ধরুন– মস্তিষ্ক, নাক, কান, গলা, থাইরয়েড, ফুসফুস, কিডনি, মূত্রথলি, হাড়, রক্ত, জরায়ু, ওভারি, সারভিক্স, খাদ্যনালি, পাকস্থলী, কোলন, প্যানক্রিয়াস, লিভার, পিত্তথলি, পিত্তনালিসহ প্রভৃতি জায়গায়। ইতোমধ্যে আমেরিকান ক্যান্সার সোসাইটি একটি গবেষণার পরবর্তীতে মতামত প্রকাশ করেছেন, তাদের মতে– হঠাৎ ১০ পাউন্ড পরিমাণ বা তার বেশি পরিমাণে ওজন কমে যাওয়াটা হচ্ছে ক্যান্সারের অন্যতম লক্ষণ।

মূলত অগ্ন্যাশয় ফুসফুস পাকস্থলী এবং খাদ্য নালির ক্যান্সার হলে ওজন ধপ করে এভাবে কমে গিয়ে থাকে। আবার ক্যান্সার কোষের সঙ্গে যুদ্ধ করার জন্য শরীর সাইটোকিন নামের এক ধরনের রাসায়নিক নিঃসরণ করে থাকে। আর এটা মূলত খাদ্যে অরুচি বাড়ায় এবং মাংসপেশীর ক্ষয় করে অতএব ওজন কমে যায় এবং শরীর যায় শুকিয়ে। তাই অতিরিক্ত শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ ক্যান্সারও হতে পারে। 

৬. অতি সক্রিয় থাইরয়েড শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

যাদের থাইরয়েড এর সক্রিয়তা অনেক বেশি তাদের মূলত দ্রুত ক্যালোরি কমতে থাকে। আর এর কারণে শরীর ধীরে ধীরে শুকিয়ে যায়। শুধু তাই নয়– অতি সক্রিয় থাইরয়েডের সমস্যা থাকলে ঘুম কম হয়, ক্লান্তি আসে, উদ্বেগের সৃষ্টি হয়, পাশাপাশি অন্যান্য আরো কিছু উপসর্গ দেখা দেয়। তাই শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে এটিও দায়ী হতে পারে। এখন আপনার শরীর মূলত কেন শুকিয়ে যাচ্ছে, সেটা সুনিশ্চিত হতে আপনার সমস্যাগুলো প্রথমত যাচাই বাছাই করা উচিত কিংবা চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরী।  

যেহেতু শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে কিছু জটিল এবং কিছু সহজ কারণ লুকিয়ে রয়েছে, তাই শারীরিক সুস্থতা কামনায় অতি দ্রুত চিকিৎসা গ্রহণ করা জরুরী। কেননা এমন কিছু রোগ রয়েছে যেগুলো প্রথম অবস্থায় চিকিৎসা করালে দ্রুত সারিয়ে তোলা সম্ভব। তাই স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে উঠুন এবং শরীর মন উভয়ে ভালো রাখতে নিজ নিজ যত্ন নিন। আর হ্যাঁ, শরীর শুকিয়ে গেলে এক্ষেত্রে করনীয় কি সে সম্পর্কে জানতে নিচের পয়েন্টগুলো পড়ুন। 

আরও পড়ুনঃ যোনিতে মাংস বৃদ্ধি হওয়ার কারণ, লক্ষণ ও প্রতিকার কি

শরীর শুকিয়ে যাওয়ার সমস্যা থেকে প্রতিকারের উপায়

শরীর শুকিয়ে যাওয়ার সমস্যাকে নিরাময়ের জন্য নিম্ন বর্ণিত উপায় গুলো অবলম্বন করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। যথা–

  • বেশি বেশি খাবার গ্রহণ
  • খাদ্য তালিকায় পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার রাখা এবং প্রচুর পরিমাণে পানি পান
  • মানসিক চাপ থেকে নিজেকে মুক্ত রাখা এবং হাসিখুশি থাকা
  • ক্যালরিযুক্ত পানিও পান করা
  • নিয়মিত ব্যায়াম করা
  • পর্যাপ্ত ঘুমানো এবং
  • সুস্বাস্থ্যের জন্য চিকিৎসকদের পরামর্শ মান্য করা।

এক কথায়– শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে যে সকল কারণ উল্লেখ করা রয়েছে সেগুলোকে এড়িয়ে চলার জন্য যা যা করার প্রয়োজন সেই করণীয় কাজগুলো করার মাধ্যমে আপনি এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন এবং নিজের শারীরিক ওজনকে স্বাভাবিক পর্যায়ে আনতে পারেন। 

আরও পড়ুনঃ শরীরচর্চা ও ফিটনেস সম্পর্কিত বিষয়বস্তু

ওজন কমে যাওয়া নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নোত্তর

১. মুখমণ্ডল শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

উত্তরঃ মুখমন্ডল শুকিয়ে যাওয়ার কারণ বিভিন্ন রকম হতে পারে। যেমন– স্ক্রীন জনিত সমস্যা অথবা হরমোনাল সমস্যা কিংবা জটিল কোন রোগে আক্রান্ত। 

২. হঠাৎ শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

উত্তরঃ হঠাৎ শরীর শুকিয়ে যাবার কারণ হচ্ছে ডায়াবেটিস কিংবা ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হওয়া।

৩. হাত-পা শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

উত্তরঃ হাত-পা শুকিয়ে যাওয়ার কারণ বিভিন্ন হতে পারে। আমরা মূলত আমাদের এই আর্টিকেলে শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে বেশ কিছু বিষয় তুলে ধরেছি। তাই এই প্রশ্নের উত্তরের জন্য পুনরায় আর্টিকেলটি পড়ুন। 

৪. চেহারা শুকিয়ে যাওয়ার কারণ

উত্তরঃ চেহারা শুকিয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ বংশগত হতে পারে অথবা হরমোনাল এবং বিপাক জনিত সমস্যাও হতে পারে। এছাড়াও আরো কিছু কারণ রয়েছে চেহারা শুকিয়ে যাওয়ার, যা আমরা আলোচিত নিবন্ধনটিতে তুলে ধরেছি। তাই এই প্রশ্নের উত্তরের পেতে পুনরায় আর্টিকেলটি পড়ুন।

৫. দিন দিন শুকিয়ে যাচ্ছি কেন?

উত্তরঃ মানসিক অবস্থা, শারীরিক অবস্থা অথবা জীবনের বিভিন্ন কারণে দিন দিন শুকিয়ে যেতে পারেন। মূলত পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি, কাজের চাপ, স্ট্রেস ইত্যাদি থেকে মানুষের শরীর শুকিয়ে যাওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পায়। মূলত এই সমস্যা থেকে বাঁচার জন্য একটি আদর্শ লাইফস্টাইল মেইনটেইন করে চলা জরুরী। 

৬. শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ ও প্রতিকার

উত্তরঃ ইতিমধ্যে আমরা আমাদের আর্টিকেলের শরীর শুকিয়ে যাওয়ার কারণ ও প্রতিকার সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেছি। তাই এই প্রশ্নের উত্তর আমাদের আলোচনা থেকে সংগ্রহ করুন। 

৭. কোন ভিটামিনের অভাবে শরীর শুকিয়ে যায়?

উত্তরঃ ৭. কোন ভিটামিনের অভাবে শরীর অতিরিক্ত শুকিয়ে যায়।

৮. মানুষ শুকিয়ে যাওয়ার কারণ কি?

উত্তরঃ মানুষ শুকিয়ে যাওয়ার কারণ হলো- হরমোনজনিত বিভিন্ন সমস্যা যেমন, অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস, হাইপারথাইরয়েডিজম, অ্যাডিসন রোগ ও প্যান হাইপোপিটুইটারিজম ইত্যাদি। এছাড়া দীর্ঘমেয়াদি সংক্রমণ, যেমন যক্ষ্মা বা টিবি রোগ, কালাজ্বর, লিভার অ্যাবসেস এবং এইচআইভি বা এইডস ওজন কমে যাওয়ার অন্যতম কারণ। অতএব এইসকল কারনেই সাধারনত মানুষ শুকিয়ে যায়।

৯. শরীরের ওজন কম হলে কি ক্ষতি হয়

উত্তরঃ শরীরের ওজন কম হলে চেহারা নষ্ট হয়ে যায়। সেই সাথে হরমোন ও বিপাক জনিত নানা রোগের আবির্ভাব ঘটে পাশাপাশি দীর্ঘমেয়াদি কিছু সংক্রমণ রোগ বাসা বাঁধে শরীরে। যেমন– যক্ষ, এইডস। 

১০. দ্রুত ওজন কমে যাওয়ার লক্ষণ

উত্তরঃ দ্রুত ওজন কমে যাওয়ার লক্ষণ হচ্ছে রক্তচাপ কমে যাওয়া, মাথা ঘোরা, কোষ্ঠকাঠিন্য, চুল পড়া, মাথাব্যথা, বিরক্তি, ক্লান্তি এবং পেশী ক্ষয়সহ প্রভৃতি। 

১১. সপ্তাহের ২ পাউন্ড ওজন কমানোর উপায়

উত্তরঃ সপ্তাহে দুই পাউন্ড ওজন কমানোর উপায় হচ্ছে কম ক্যালরিযুক্ত খাদ্য গ্রহণ এবং নিয়মিত শারীরিক ক্রিয়া-কলাপের মাধ্যমে প্রতিদিন খাওয়ার চাইতে ৫০০ থেকে ১০০০ ক্যালরি বেশি খরচ করা। 

১৩. ক্যালরির ঘাটতিতে ওজন কমছে না কেন?

উত্তরঃ ক্যালরির ঘাটতিতে ওজন না কমার কারণ হচ্ছে- ক্যালোরি গ্রহণের ভুল গণনা, হরমোনাল কারণ, ওষুধ খাওয়া, ঘুমের অভাব, পেশীর ভর বৃদ্ধি, জল ধরে রাখা এবং অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়াসহ প্রভৃতি। 

১৪. এক মাসে কি ওজন কমে?

উত্তরঃ হ্যাঁ, যদি সঠিক ডায়েট চার্ট ফলো করে নিয়মিত সুনির্দিষ্ট কিছু ব্যায়াম করা যায় তাহলে এক মাসেও ওজন কমানো সম্ভব। 

১৫. ৩ সপ্তাহ ব্যায়ামের পর ওজন বাড়ে কেন?

উত্তরঃ ব্যায়াম করার পরে ওজন বৃদ্ধি পেশী ফাইবার প্রদাহ, পেশী গ্লাইকোজেন এবং জলের ওজন বৃদ্ধির কারণে এবং সময়ের সাথে সাথে পেশী ভর বৃদ্ধির কারণে হতে পারে। অতএব বলা যায়- তিন সপ্তাহ ব্যায়ামের পর এই সকল কারণেই মূলত ওজন বেড়ে থাকে। 

তো বন্ধুরা, এই ছিল আমাদের আজকের আলোচনা পর্ব। আশা করি আমাদের এই আলোচনার মাধ্যমে আপনি আপনার কাঙ্খিত প্রশ্নের সমাধান পেয়েছেন। তবুও যদি আরো কিছু জানার থেকে থাকে কমেন্ট করে জানান এবং আমাদের অলইজি এডভাইসের সাথে থাকুন। সবাইকে আল্লাহ হাফেজ। 

আরও দেখুনঃ

All Easy Google News
Setu
Setu

Assalamu Alaikum, I am Setu. An ordinary girl studying in honors. Currently engaged in the world of technology. I am very passionate about blogging and writing. I like to learn and share something new😇

Articles: 135

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *