শক্তিবর্ধক পানীয় ব্লু ড্রিংক (ধরণ, স্বাদ ও ড্রিংকের ইতিকথা)

ব্লু ড্রিংক, Blue Drink- বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় কোমল পানীয়, যাকে শক্তিবর্ধক পানীয় বলা হয়ে থাকে। সাধারণত নীল রঙের অসম্ভব সুন্দর দেখতে এলকোহল যুক্ত এই পানীয়টি অনেকের কাছেই অত্যন্ত পছন্দের। কেননা ব্লু  ড্রিংক তৈরীর রেসিপি, বিদ্যমান উপাদান, রং ও স্বাদ উভয়ই অতুলনীয়। 

ব্লু ড্রিংক

কোমল পানীয় তো অনেক ধরনেরই হয়ে থাকে। কিন্তু যদি বলা হয় এই মুহূর্তে বিশ্বসেরা এনার্জি ড্রিঙ্ক কোনটি, তাহলে রেড বুল এর নাম উঠে আসে। যেটা একটি ব্লু ড্রিংক এর অন্তর্ভুক্ত কোমল পানীয়। আজকের এই পোস্টে ব্লু ড্রিংক নামে পরিচিত সুস্বাদু ও দুর্দান্ত ওই সকল কোমল পানীয় সম্পর্কে জানাবো খুঁটিনাটি। সো রিড দিস আর্টিকেল।

আরও দেখুনঃ বাংলাদেশে তৈরি “রাফসান দা ছোট ভাই” এর নতুন ব্লু ড্রিংক সম্পর্কে বিস্তারিত.

ব্লু ড্রিংক কি?

ব্লু ড্রিংক এক ধরনের অ্যালকোহল যুক্ত কোমল পানীয়। বলতে পারেন ব্লু ড্রিংক অথবা নীল কুরাকাও হচ্ছে ক্যারিবিয়ান অঞ্চলে তৈরিকৃত একটি সুন্দর রংয়ের কোমল পানীয়। যে পানিয়র স্বাদ এবং রং অসম্ভব সুন্দর। যাকে সুইমিংপুলের জল বলে মনে করেন অনেকেই। 

সাধারণত বিভিন্ন ধরনের ব্লু ড্রিংক হয়ে থাকে। ঠিক এ কারণে এই রঙে তৈরিকৃত সেরা অ্যালকোহল যুক্ত পানিও কি কি এবং সেগুলো কেন জনপ্রিয়, আর কিভাবেই বা সেই সকল ব্লু ড্রিংক গুলো তৈরি করা হয়, সে সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হচ্ছে আর্টিকেলের পরবর্তী অংশে। 

তবে আপনি চাইলে আরো দেখতে পারেন– বিভিন্ন জনপ্রিয় খাবারের সহজ রেসিপি ও বিভিন্ন খাদ্যের পুষ্টিগুণাগুণ সম্পর্কিত আরো কিছু প্রয়োজনীয় পোস্ট, (ক্লিক করুন) যা সাজেস্কৃত লিংকে সরাসরি ভিজিট করার মাধ্যমে পেয়ে যাবেন। 

ব্লু ড্রিংক এর নাম | জনপ্রিয় ব্লু ড্রিংক

ব্লু ড্রিংক

এই মুহূর্তে সবচেয়ে সেরা ব্লু কোরাকাও ড্রিংক গুলো হলো –

  • ব্লু হাওয়াই পানীয় (Blue Hawaii Drink)
  • ব্লু মার্গারিটা পানীয় (Blue Margarita Drink)
  • চি-চি (Chi-Chi)
  • স্যাফায়ার মার্টিনি (Sapphire Martini)
  • ড্যাফনে মার্টিনি (Daphne Martini)
  • হ্যালোইন Hpnotist (Halloween Hpnotist)
  • ব্লু লং আইল্যান্ড আইসড চা (Blue Long Island Iced Tea)
  • অ্যাকোয়া ভেলভা পানীয়(Aqua Velva Drink)
  •  ব্লু লেগন পানীয় (Blue Lagoon Drink)
  • স্যাফায়ার আলপাইন (Sapphire Alpine)
  • ব্লু বেউ Blue Bayou
  • জেলি ফিস (Jellyfish) সহ প্রভৃতি।

ব্লু ড্রিংক তৈরীর উপাদান

আমাদের উল্লেখিত ব্লু ড্রিংক গুলো যদি আপনি তৈরি করতে চান সেক্ষেত্রে আলাদা এবং এক্সপেন্সিভ কিছু জিনিস সংগ্রহ করতে হবে। অতএব এই সকল ড্রিঙ্ক তৈরিতে যে উপাদান গুলো মেশানো হয় সেগুলো সংগ্রহ করতে হবে এবং নির্দিষ্ট একটি প্রক্রিয়ায় তৈরি করতে হবে ব্লু ড্রিংক। 

ব্লু ড্রিংক

যেমন আপনি যদি ব্লু হাওয়াই ড্রিংক টি তৈরি করতে চান সে ক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে –

  • সাদা রাম
  • ভদকা
  • ব্লু কুরাকাও
  • আনারসের রস
  • চুনের রস
  • লেবুর রস
  • বরফ টুকরো

মূলত এই প্রত্যেকটি উপাদান নির্দিষ্ট পরিমাণে নিয়ে মেশাতে হবে। অতঃপর তাতে কিছু বরফের টুকরো যোগ করে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করতে হবে। 

অন্যদিকে আপনি যদি ব্লু মার্গারিটা তৈরি করতে চান সেক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে–

  • ব্লু কুড়া কাও
  • টেকিলা রেপোসাডো
  • সামুদ্রিক লবণ
  • বরফ টুকরো

তবে হ্যাঁ, আপনি যদি খুবই সাধারণ কিছু উপাদান সংগ্রহ করে ব্লু ড্রিঙ্ক তৈরি করতে চান সে ক্ষেত্রে ব্লু মুন ড্রিংকস টি নিচের নিয়ম মেনে এখনই প্রস্তুত করতে পারেন। 

আরও দেখুনঃ শরীরচর্চা ও ফিটনেস সম্পর্কিত আর্টিকেলসমূহ

ব্লু ড্রিংক তৈরির নিয়ম | ব্লু মুন ড্রিংকস রেসিপি

ব্লু ড্রিংক

ব্লু মুন ড্রিংকস তৈরি করতে হলে সংগ্রহ করতে হবে–

  • লেবুর রস
  • বিট লবণ
  • সোডা
  • চিনি
  • ব্লু ফুড কালার
  • এবং বরফ টুকরো

প্রয়োজনীয় উপাদানের পরিমাপ: ব্লু মুন ড্রিঙ্কস টি তৈরি করতে হলে সবার প্রথমে এক কাপ সোডা ওয়াটার নিতে হবে। সেই সাথে এক টেবিল চামচ গুড়া চিনি, এক চা চামচ লেবুর রস, ১,৪ চা চামচ বিট লবণ, কয়েক ফোটা ব্লু ফুড কালার, তিন টুকরা লেবু এবং তিন অথবা পাঁচ টুকরা বরফের কিউব। 

তৈরীর ধারাবাহিক প্রক্রিয়া: ব্লু মুন ড্রিংকস তৈরির জন্য প্রথমে গ্লাসে কিছুটা লেবুর রস মাখিয়ে নিন। এরপর একটি থালা অথবা বাটিতে চিনি ঢেলে গ্লাসটা উপুড় করে গ্লাসের মুখে চিনি লাগিয়ে নিন। 

অতঃপর একটু নেড়ে সোডা ওয়াটার এড করে ভালোভাবে মেশান। অতএব গ্লাসের মধ্যে চিনির গুঁড়ো এবং লেবুর রস একসঙ্গে ভালোভাবে মিক্সড করুন। পরবর্তীতে আরও যুক্ত করুন বরফ বিট লবণ এবং লেবুর টুকরো। অতঃপর যুক্ত করুন তিন থেকে পাঁচ ফোটা ব্লু ফুড কালার।

ব্যাস অতঃপর পরিবেশন করুন। মূলত ব্লু মুন ড্রিঙ্কস এর বেঙ্গলি এই রেসিপিটি অত্যন্ত সহজ এবং তৈরিকৃত পানীয়টি অত্যন্ত সুস্বাদু। কিন্তু আপনি যদি জনপ্রিয় ঐ সকল ব্লু ড্রিঙ্ক বাড়িতে তৈরি করতে চান তাহলে কিছুটা খরচ পড়বে এবং প্রয়োজনীয় উপাদান গুলো সংগ্রহ করতে হবে। যেগুলো কিছুটা ব্যয়বহুল। কিন্তু যেহেতু বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ড্রিংক এর তালিকায় ওই সকল ব্লু ড্রিঙ্ক অবস্থান করছে তাই একবারের জন্যেও টেস্ট করা জরুরী। 

এখন আসুন জেনে নেই, বিশ্বের জনপ্রিয় এনার্জি ড্রিংক হিসেবে পরিচিত রেড বুল ড্রিংকস এর ইতিকথা। সেই সাথে আরো থাকছে, ব্লু ড্রিঙ্ক সম্পর্কিত বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন ও তার উত্তর। 

এনার্জি ব্লু ড্রিংক এর ইতিকথা

ব্লু ড্রিংক

আরও দেখুনঃ লক্ষ কি | লক্ষ কি পরিকল্পনা | লক্ষ্য ও পরিকল্পনার মধ্যে পার্থক্য

রেড বুল এনার্জি ড্রিঙ্ক একটি নন অ্যালকোহলিক ব্রেভারেজ। কিন্তু তবুও এতে কিছু সফট ড্রিংকসের মত সামান্য পরিমাণ অ্যালকোহল রয়েছে। যেটা বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এনার্জি ড্রিংক হিসেবে সুপরিচিত। আর এই এনার্জি ব্লু ড্রিংক টি তৈরি করছে বিখ্যাত অস্ট্রিয়ান কোম্পানি রেড বুল জি এম বি এইচ। এই কোম্পানিটি একমাত্র প্রস্তুতকারক এনার্জি রেড বুল ড্রিংক এর। 

জানা গিয়েছে এই ব্লু ড্রিংক এর ইতিহাসের সঙ্গে দুই জন ব্যক্তির নাম জড়িয়ে রয়েছে। তারা হলেন চালেও ইউভিদিয়া। অন্যজন হলেন ডিটরিখ মাটেসচিটজ। 

প্রথম ব্যক্তিটির জন্ম ১৯২৩ সালে। তিনি থাইল্যান্ডের একটি নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। আর পারিবারিক অসচ্ছলতার কারণে পড়াশোনা না এগিয়ে যাওয়ার ফলে অল্প বয়সেই হাল ধরতে হয় পরিবারের। ভরণপোষণের দায়িত্ব পালনে নিজেকে প্রস্তুত করতে সে সময় একটি দোকানে কাজ শুরু করেন চালেও ইউভিদিয়া নামক এই ব্যক্তি। 

সেখানে তিনি কাজ করতেন একজন এন্টিবায়োটিক ঔষধের সেলসম্যান হিসেবে। আর সেখানে কাজ করতে গিয়েই কেমিক্যাল এর ওপর বেশ দক্ষতা অর্জন করে নেন তিনি। পরবর্তীতে ১৯৬২ সালে একটি ঔষধ কোম্পানি চালু করেন সেই ব্যক্তি। পরবর্তীতে ৭০ দশকের দিকে থাইল্যান্ডের বাজারে প্রবল জনপ্রিয়তা লাভ করে এনার্জি ড্রিংক গুলো। যার প্রত্যেকটি ড্রিংক বাইরে থেকে আমদানি করা হতো।

কিন্তু এ বিষয়টাকে কব্জা করে ওই ব্যক্তি থাইল্যান্ডের বাজারের অন্যান্য সফট ড্রিংসের উপকরণ নিয়ে গবেষণা শুরু করেন। এরপর নিজ ফর্মুলায় তৈরি করেন একটি এনার্জি ড্রিঙ্ক। যেটা ছিল তার প্রথম তৈরি কৃত এনার্জি ড্রিঙ্ক এবং ওই দেশে ওইটাই ছিল প্রথম প্রস্তুতকৃত নিজস্ব দেশের এনার্জি ড্রিংকস। যে কারণে পরবর্তীতে ধীরে ধীরে তার মাধ্যমে প্রস্তুত হতে থাকে অ্যালকোহল জাতীয় নিজ ফর্মুলায় তৈরিকৃত এই ড্রিংক গুলো। যা থাইল্যান্ডের মানুষ সাশ্রয় মূল্যে কিনতে পারে। 

তবে হ্যাঁ, ওই ব্যক্তির তৈরি কৃত সফট ড্রিঙ্ক এর নাম ছিল ক্রাটিং ডায়েং। যেটা ১৯৭৮ সালের দিকে সবচেয়ে বেশি বিকৃত এনার্জি ড্রিংক এর তালিকায় সবার প্রথমে অবস্থান করে এবং এই ড্রিংক থাইল্যান্ডের জাতীয় ড্রিংক হিসেবে খ্যাতি অর্জন করে। 

অতঃপর উল্লেখিত দ্বিতীয় ব্যক্তি ১৯৮২ সালের দিকে বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে থাইল্যান্ড ভ্রমণ করেন। একদিন বিমান ভ্রমণে অত্যন্ত ক্লান্ত হওয়ায় সেই ভদ্রলোকটি পান করেন থাইল্যান্ডের এই পানিয়টি। যেটা তার কাছে অনেক বেশি ভালো লাগে এবং তিনি সেটিকে অস্ট্রিয়াতে বাজারজাত করার জন্য মনস্থির করেন। পরবর্তীতে সেই ব্যবসায়ী ক্রাটিং ডায়েং এনার্জি ড্রিঙ্ক এর নাম বদলে নিজ দেশে রেড বুল নামে আখ্যায়িত করেন, আর ১৯৮৭ সালে অস্ট্রিয়াতে প্রথম রেডবুল ড্রিংকস টি বাজারজাত করা হয়। যার জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী হয়ে ওঠে। 

মূলত ব্যবসায়ী ডিটরিখের মার্কেটিং সিস্টেম, মার্কেটিং স্ট্রেটেজি এবং নিজের বুদ্ধিমত্তার কারণে বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জনপ্রিয়তা লাভ করে এই রেড বুল এবং পরবর্তীতে প্রায় 16 ধরনের রেড বুলের বিভিন্ন ফ্লেভার বের হয় এবং এর বর্তমান ব্র্যান্ড ভ্যালু গিয়ে পৌঁছায় 9.9 বিলিয়ন ইউএস ডলারে। আরও পড়ুনঃ বিক্রয় কি | বিক্রয় কাকে বলে.

তো অডিয়েন্স বন্ধুরা, রেড বুল এবং এনার্জি ড্রিংকস সম্পর্কে এই ছিল আমাদের আজকের বক্তব্য। এখন পড়ে নিন এনার্জি ড্রিংক সম্পর্কিত কিছু বহুল জিজ্ঞাসিত প্রশ্নের উত্তর সমূহ। 

ব্লু ড্রিংক ব্লু ড্রিংকস ( FAQ)

১. ব্লু ড্রিংক এর দাম কেমন | রেড বুলের মূল্য কত?

✓ ব্লু ড্রিঙ্ক এর দাম অনেক বেশি। বিশেষ করে রেড বুলের মূল্য মাথা নষ্ট করার মত। যেমন ২৫০ ml রেড বুল এনার্জি ড্রিংক এর দাম ২০৭০০ টাকা। 

২. রেড বুল এত দামি কেন?

✓ রেড বুল নামের এই এনার্জি ড্রিংক একমাত্র অস্ট্রিয়াতে উৎপাদিত হয়। ঠিক এ কারণে এর ক্রেতা ভ্যালু এবং ব্রান্ড ভ্যালু অনেক হাই। আর আমরা সবাই কমবেশি জানি যে যে কোন পণ্যের দাম উৎপাদন বিপণন ও তৈরি কৃত প্রক্রিয়ার উপর নির্ভর করে। অতএব বলা যায় রেড বুল এর দাম এ কারণেই অনেকটা বেশি।

৩. রেড বুল কি অ্যালকোহল | ব্লু ড্রিংকে কি অ্যালকোহল থাকে?

✓ রেড বুল এ অ্যালকোহলের মাত্রা খুবই কম পরিমাণে রয়েছে। তাই রেড বুল এনার্জি ড্রিঙ্ক একটি নন অ্যালকোহল যুক্ত পানিও হিসেবে গণ্য করা হয়। তবে ব্লু ড্রিংকে সাধারণত অ্যালকোহল থেকে থাকে। তবে প্রত্যেকটি ব্লু ড্রিংকে যে এলকোহল রয়েছে এটা বলা যাচ্ছে না। 

৪. রেড বুল এত সমৃদ্ধ কেন?

✓ রেড বুল নামের তৈরিকৃত এনার্জি সফট ড্রিঙ্ক টি অত্যন্ত সুস্বাদু একটি পানীয়। মূলত এটি অনেক বেশি সমৃদ্ধ হওয়ার কারণ ভালো বাজারজাতকরণ প্রক্রিয়া। 

৫. স্পিড এনার্জি ড্রিংক উপাদান

✓ এই ধরনের ড্রিংক গুলো মূলত কোম্পানিগুলো খোলাসা না করার চেষ্টা করে। তবে স্পিড এনার্জি ড্রিংকে সামান্য পরিমাণ হলেও কিছু অ্যালকোহল রয়েছে। 

৬. স্পিড এনার্জি ড্রিঙ্ক কোন কোম্পানি

✓ বাংলাদেশে স্পিড তৈরিকৃত প্রতিষ্ঠানটি হচ্ছে আকিজ ফুড এন্ড বেভারেজ লিমিটেড। 

৭. স্পিড এনার্জি ড্রিংক দাম

✓ স্পিড এনার্জি ড্রিঙ্ক এর দাম ২৫০ml ২৫ টাকা।

✓ হ্যাঁ, এনার্জি ড্রিঙ্কস কে হালাল হিসেবে সম্বোধন করা যায়। কেননা ইসলামে মদের উপাদানকে হারাম হিসেবে গণ্য করা হয়নি। কারণ আঙ্গুল ফল থেকে মদ তৈরি হয় কিন্তু আমাদের ইসলামি দৃষ্টিকোণ থেকে আঙ্গুর ফল খাওয়া হালাল। এছাড়াও বেশিরভাগ মদ তৈরি করতে আপেল ব্যবহার করা হয়। যেহেতু এই ফলগুলো খাওয়া হালাল অতএব এনার্জি ড্রিঙ্ক হালাল হিসেবে ধরা যেতে পারে। 

৯.এনার্জি ড্রিংকস এর অপকারিতা

✓ অনেকের প্রশ্ন এনার্জি ড্রিঙ্ক কি স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক? হ্যাঁ এটি ক্ষতিকারক এবং এনার্জি ড্রিংস এর অপকারিতা রয়েছে। যেমন ধরুন–

  • এই ধরনের ড্রিংকস নিয়মিত পান করলে দাঁতের ক্ষয় হয়
  • মুখে ফাংগাল ইনফেকশন হয়
  • ডিহাইড্রেশনের সমস্যা দেখা দেয়। 

১০. ব্লু ড্রিংক এর উপকারিতা

✓ এনার্জি ড্রিঙ্ক আমাদের শরীরের জন্য কতটা উপকারী এটা জানতে অনেকেই ব্লু ড্রিঙ্ক এর উপকারিতা ও জানতে চান। ইতিমধ্যে একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে এই ধরনের ড্রিংকগুলো পান করলে রক্তচাপ এবং হৃৎপিণ্ডে পরিবর্তন আসে। 

তবে অ্যালকোহল জাতীয় ড্রিংক গুলো অতিরিক্ত পরিমাণে পান করা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। তবে আপনি যদি ব্লু ড্রিংক হিসেবে স্বাস্থ্যের জন্য উপযোগী এমন উপাদান ব্যবহার করে তা তৈরি করেন এবং পান করেন তাহলে সেটা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। যেমন ধরুন আমাদের আর্টিকেলে উল্লেখিত ব্লু মুন ড্রিঙ্কস টি আপনার ডিহাইড্রেশন দূর করবে এবং আপনাকে স্বস্তি দেবে।

আরও দেখুনঃ

All Easy Google News
Setu
Setu

Assalamu Alaikum, I am Setu. An ordinary girl studying in honors. Currently engaged in the world of technology. I am very passionate about blogging and writing. I like to learn and share something new😇

Articles: 132

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *